17/07/2019 , ঢাকা

আওয়ামী লীগকে কেউ ধ্বংস করতে পারবে না: শেখ হাসিনা


প্রকাশিত: 17/07/2019 14:25:34| আপডেট:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে এই উপমহাদেশের একটি প্রাচীন ও সুসংগঠিত রাজনৈতিক দল হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেছেন, একে কেউ ধ্বংস করতে পারবে না।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ এই উপমহাদেশের রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে একটি প্রাচীন ও সুসংগঠিত দল। এই দলকে শত আঘাতেও ছিন্ন ভিন্ন করতে পারেনি। ভবিষ্যতেও পারবে না, ইনশা আল্লাহ।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামী লীগের শেকড় বাংলার মাটির সাথে এমনভাবে প্রোথিত, শত চেষ্টা করেও একে কেউ উপড়ে ফেলতে পারেনি। আর পারবেও না।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সোমবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির ভাষণে একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী দেশের জন্য ত্যাগের মানসিকতা নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের কাজ করে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদেরও এটাই মনে রাখতে হবে যে, আমাদের পূর্বসূরীরা যেভাবে আত্মত্যাগ করে গেছেন ঠিক প্রত্যেক নেতাকর্মীকে জাতির পিতার আদর্শ নিয়ে চলতে হবে।’

শৈশবের নৈতিক শিক্ষা ‘সিম্পল লিভিং হাই থিংকিং’-এর প্রসঙ্গ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘সাধারণ জীবনযাপনের মধ্য দিয়েই, ত্যাগের মধ্য দিয়েই অর্জন করা যায়। কারণ বঙ্গবন্ধু বলে গেছেন, মহৎ অর্জনের জন্য মহান ত্যাগের প্রয়োজন।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি এবং তাঁর সরকার বঙ্গবন্ধুর নীতি মেনে চলার কারণেই বাংলাদেশ আজকে উন্নয়নের উচ্চ শিখরে এগিয়ে যাচ্ছে।

প্রবৃদ্ধি ৮ দশমিক ১৩ ভাগে এবং মাথাপিছু আয় এক হাজার ৯০৯ ডলারে উন্নীত করেছে তাঁর সরকার এবং একে আরো এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই সরকারের লক্ষ্য উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, যখন বাংলাদেশের মানুষের কোনো অর্জন হয় তখন তাঁর মৃত বাবার আত্মা শান্তি পায় বলেও নিজস্ব অনুভূতি ব্যক্ত করেন বঙ্গবন্ধু কন্যা।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আমির হোসেন আমু ও তোফায়েল আহমেদ, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম ও মোহাম্মদ নাসিম এবং অধ্যাপক মুনতাসির মামুন আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন।

এ ছাড়া দলের যুগ্ম সম্পাদক আবদুর রহমান ও অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম রহমতউল্লাহ এমপি এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত বক্তব্য দেন। দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সভায় প্রারম্ভিক বক্তৃতা করেন।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এবং উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন। এ সময় দলের জ্যেষ্ঠ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীসহ দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন।


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

আওয়ামী লীগ এমপির ‘জামায়াতি’ শ্বশুরের জানাজায় সংঘাত

আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভীর শ্বশুর। মুমিনুল হকের মেয়ে অর্থাৎ নদভীর স্ত্রী রিজিয়া রেজা চৌধুরী মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য।

আওয়ামী লীগের মেয়াদোত্তীর্ণ সব কমিটির সম্মেলনের নির্দেশ

কমিটি করতে গিয়ে নিজের লোক না খোঁজার নির্দেশনা দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, কমিটি করতে গিয়ে নিজের লোক খুঁজবেন না, দলের লোক খুঁজবেন। কেউ নিজের থাকবে না। সবাই আওয়ামী লীগের, সবাই শেখ হাসিনার সঙ্গে থাকবে।

জোর করে বাজারের নাম বদলে দিলেন আওয়ামী লীগ নেতা

বাজারের নতুন নামকরণ করে ‘আওয়ামী লীগ বাজার ও বঙ্গবন্ধু বাসস্ট্যান্ড’ নামে সাইন বোর্ড লাগানো হয়। পরে ওই সাইন বোর্ডের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। বিষয়টি নিয়ে শুরু হয় তোলপাড়।

মন্তব্য লিখুন...

Top