14/12/2018 , ঢাকা

আপিলেও বাদ পড়লেন যে ৭৭ প্রার্থী


প্রকাশিত: 14/12/2018 11:41:43| আপডেট:

মনোয়নয়নপত্র বাতিলে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে করা ১৬০টি আপিলের শুনানি শেষে ৮১ প্রার্থী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লড়ার বৈধতা পেয়েছেন।

বৃহস্পতিবার শুনানির প্রথম দিনে প্রায় ১৬০টি আপিল নিষ্পত্তি করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ইসি ৮১ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করে, ৭৭ জনের প্রার্থীতা বাতিল করেন এবং ২ জনের আবেদন অনিষ্পন্ন রাখা হয়। রিটার্নিং অফিসারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করে প্রার্থিতা ফেরত পেলো বিএনপির ৩৮ জন প্রার্থী। অপরদিকে দলটির ২০ জন প্রার্থীর আপিল নাকচ হয়েছে। আপিল আবেদনের শুনানি শেষে নির্বাচন কমিশনের ছাড়পত্র পাওয়ায় চার আসনে নিজেদের একক প্রার্থী ফিরে পেয়েছে বিএনপি।

নির্বাচন ভবনের একাদশ তলায় সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত এই শুনানি চলে। ৫৪৩টি আপিল আবেদনের মধ্যে প্রথম দিন ১৬০টি আবেদনের ওপর শুনানি হয়।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা, নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম ও শাহাদাত হোসেন চৌধুরী এই শুনানিতে বিচারকের আসনে ছিলেন।

আপিল শুনানির প্রথম দিনের কার্যক্রম পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, রিটার্নিং অফিসার লাভজনক পদে থাকার কারণে যেসব প্রার্থীদের প্রার্থিতা বাতিল করেছিলেন আপিলে তার বেশিরভাগই প্রার্থিতা ফেরত পেয়েছেন। এদিকে প্রথমদিনের আপিল শুনানিতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের একজন প্রার্থিতা ফেরত পেয়েছেন।

বিএনপির যেসব প্রার্থীর আবেদন নাকচ হয়েছে:

খাগড়াছড়ি আসনের আব্দুল ওয়াদুদ ভূঁইয়া, ঝিনাইদহ-১ আসনের মো. আব্দুল ওহাব, পঞ্চগড়-১ আসনের মো. তৌহিদুল ইসলাম, বগুড়া-৩ আসনের মো. আব্দুল মুহিত, বগুড়া-৬ আসনে একেএম মাহবুবুর রহমান, হবিগঞ্জ-২ আসনের মো. জাকির হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের আখতার হোসেন, ফেনী-১ আসনের মো. নূর আহাম্মদ মজুমদার, লালমনিরহাট-২ আসনের মো. জাহাঙ্গীর আলম, রংপুর-৫ আসনের মমতাজ হোসেন, চট্টগ্রাম-৫ আসনের মীর মোহাম্মদ নাসির, নীলফামারী-৪ আসনের মো. আমজাদ হোসেন, নীলফামারী-৩ আসনের ফাহমিদ ফয়সাল চৌধুরী, সিরাজগঞ্জ-৩ আসনের সাইফুল ইসলাম শিশির, বাহ্মণবাড়িয়া-৪ আসনের মুশফিকুর রহমান, নাটোর-২ আসনের রুহুল কুদ্দুস তালুকদার, বগুড়া-৭ আসনের মোহাম্মদ সরকার বাদল, সিরাজগঞ্জ-২ আসনের ইকবাল হাসান মাহমুদ, নওগাঁ-৫ আসনের মোহাম্মদ নাজমুল হক, যশোর-২ আসনের সাবিরা নুর ও মাগুরা-২ আসনের খন্দকার মেহেদী আল মাসুম।

স্বতন্ত্র যাদের আবেদন নামঞ্জুর হয়েছে তারা হলেন- চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের নবাব মো. শামছুল হুদা, দিনাজপুর-২ আসনের মোকাররম হোসেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের মো. তৈয়ব আলী, দিনাজপুর-১ আসনের মোহাম্মদ পারভেজ হোসেন, ফেনী-১ আসনের মিজানুর রহমান, কিশোরগঞ্জ-৩ আসনের ড. মিজানুল হক, রাঙ্গামাটি আসনের অমর কুমার দে, বগুড়া-৪ আসনের মোহাম্মদ আশরাফুল হোসেন আলম (হিরো আলম), সাতক্ষীরা-১ আসনের এসএম মুজিবুর রহমান, ব্রাহ্মবাড়িয়া-৩ আসনের মো. বশির উল্লাহ, নওগাঁ-৪ আসনের আফজাল হোসেন, লক্ষ্মীপুর-২ আসনের আবুল ফয়েজ ভুঁইয়া, কুমিল্লা-২ আসনের মো. সারওয়ার হোসেন, কুমিল্লা-৪ আসনের মাহবুবুল আলম, নোয়াখালী-৩ আসনের এইচ আর এম সাইফুল ইসলাম, লালমনিরহাট-১ আসনের আবু হেনা মো. এরশাদ হোসেন, নীলফামারী-৪ আসনের আখতার হোসেন বাদল, নীলফামারী-৪ আসনের মিনহাজুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম-৪ আসনের আবুল হাশেম, কুড়িগ্রাম-১ আসনের মোহাম্মদ ওসমান গণি, ফেনী-৩ আসনের হাসান আহমদ, ময়মনসিংহ-১০ আসনের মোহাম্মদ হাবিবুল্লাহ, বগুড়া-২ আসনের মোহাম্মদ আবুল কাসেম, বাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনের নজরুল ইসলাম ভূঁইয়া, নড়াইল-১ আসনের মোহাম্মদ শাহাদাৎ হোসেন ও সাতক্ষীরা-১ আসনের নুরুল ইসলাম।

অন্যান্য দলের যেসব প্রার্থীদের আবেদন নামঞ্জুর হয়েছে, তাদের মধ্যে রয়েছেন: জাতীয় পার্টির মাদারীপুর-৩ আসনের মুহাম্মদ আব্দুল খালেক, ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে বিকল্প ধারা বাংলাদেশের এসএম খলিলুর রহমান, নেত্রকোণা-১ আসনে বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম, ময়মনসিং-২ আসনের জাপার মোহাম্মদ এমদাদুদল হক ও খুলনা-২ আসনে জাপার এসএম এরশাদুজ্জামান।

বিএনপি ও স্বতস্ত্র মিলে চারটি আবেদন অপেক্ষমাণ আছে। সেগুলো হলো- গাইবান্ধা-৫ আসনের মো. নাজিমুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম -৪ আসনের ইমান আলী, চট্টগ্রাম-৯ আাসনের সামসুল আলম। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্যে কুড়িগ্রাম-৪ আসনের আদিভ আলভীর আপিল আবেদনও পেন্ডিং আছে।

এর আগে গত তিন দিনে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) মোট ৫৪৩টি আপিল জমা পড়ে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে মোট ৩ হাজার ৬৫টি মনোনয়নপত্র জমা পড়েছিল। দ্বিতীয় দিন শুক্রবার ১৬১ থেকে ৩১০ এবং তৃতীয় দিন শনিবার ৩১১ থেকে ৫৪৩ পর্যন্ত শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

উল্লেখ্য, আগামী ৯ ডিসেম্বর মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন এবং ১০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। আর ভোটগ্রহণ ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

ওসির নেতৃত্বে পুলিশ প্রটোকলে আইনমন্ত্রীর নির্বাচনী প্রচারণা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া আখাউড়া থানার ওসির নেতৃত্বে পুলিশ প্রটোকল নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা করলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ (কসবা-আখাউড়া) আসনে আওয়ামী

পুলিশের বিরুদ্ধে বিএনপি নেতাকে ছাদ থেকে ফেলে হত্যার অভিযোগ

নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ছাদে থাকা বাবাকে দেখিয়ে দেওয়া হয়। পরে তিন তলার ছাদে উঠে পুলিশ কফিল উদ্দিনকে সেখান থেকে ফেলে দেয়।

রাষ্ট্রনেতা-নেতা-মন্ত্রী-অভিনেতায় জমজমাট এক আসনের নির্বাচন

একজন সাবেক রাষ্ট্রপতি, সাবেক মন্ত্রী, সাবেক এমপি ও সাবেক চলচ্চিত্রাভিনেতার লড়াই হবে এই আসনে

মন্তব্য লিখুন...

Top