20/06/2019 , ঢাকা

ইত্তেফাক-ই প্রথম রিপোর্টার পাঠিয়েছিলো


প্রকাশিত: 20/06/2019 11:28:35| আপডেট:

বিশ্বকাপ ক্রিকেট বলুন আর ফুটবল বলুন- দুটোই কভার করতে ঢাকার প্রাচীনতম দৈনিক ইত্তেফাক প্রথম রিপোর্টার পাঠিয়েছিলো। আর সেই রিপোর্টার হলেন মতিউর রহমান চৌধুরী। তিনি তখন ছিলেন কূটনৈতিক রিপোর্টার।  রেকর্ড বলছে, মতিউর রহমান চৌধুুরী প্রথম বাংলাদেশি সাংবাদিক, যিনি ক্রিকেট এবং ফুটবল বিশ্বকাপ দুটোই কভার করেছেন।

১৯৮৭ সালে ক্রিকেট আসর বসেছিলো ভারত-পাকিস্তানে। ১৯৭৫ সালে চালু হওয়ার পর ইংল্যান্ডের বাইরে এটাই ছিলো জমজমাট বিশ্বকাপ। ভারত-পাকিস্তান খেলা মানেই একধরনের রোমাঞ্চ, উত্তেজনায় ঠাসা। কলকাতার ইডেন গার্ডেনে ভারত-পাকিস্তান মুখোমুখি হয়েছিলো।

ভারত-পাকিস্তানের এই উত্তেজনার ঢেউ বাংলাদেশেও লেগেছিল। সেই শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচটি মতিউর রহমান চৌধুরী কভার করেছিলেন ইডেন গার্ডেন থেকে। ইত্তেফাকে প্রধান শিরোনাম হয়েছিল খবরটি।

বিশ্বকাপ এলেই ফুটবলের উন্মাদনায় কাঁপে বাংলাদেশ। বিশেষ করে ৯০-এর বিশ্বকাপ ফুটবল থেকেই। ফুটবলের কিংবদন্তী ম্যারাডোনার অস্বাভাবিক উত্থান হয় তখন। ৮৬’র বিশ্বকাপ জয়ী আর্জেন্টিনার নায়ক ছিলেন ম্যারাডোনা। ৯০-এর ইতালি বিশ্বকাপে এসে অবশ্য হোঁচট খান।

ক্যামেরুনের সঙ্গে হেরে যাওয়ার পর চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় ফুটবল দুনিয়ায়। সেই বিশ্বকাপ কভার করেছিলেন মতিউর রহমান চৌধুরী। ম্যারাডোনার সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন বাংলাদেশি এই সাংবাদিক। ইত্তেফাকের ইতিহাসে খেলা একটানা ৩০ দিন প্রধান শিরোনাম হয়েছিলো।

সম্পাদক আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর ঐকান্তিক ইচ্ছাতেই দুটো বিশ্বকাপে রিপোর্টার পাঠানো হয়। প্রয়াত বরেণ্য সাংবাদিক গোলাম সারোয়ার এখানে মুখ্য ভূমিকা রাখেন। যা ইতিহাস হয়ে রয়েছে।


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

ঘটনার বিস্তারিত জানিয়েছি, কেন তদন্ত করা হয়নি: সোহেল তাজ

সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমদ সোহেল তাজ বুধবার সন্ধ্যায় ফেসবুক লাইভে এসে বলেছেন, আমরা সৌরভকে ফিরে পেতে চাই জীবিত এবং অক্ষত অবস্থায়। সেটাই আমাদের দাবি। আ

অজি বধের টোটকা বাতলে দিলেন মাশরাফি

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৭ উইকেটের জয়ের পর বিশ্বকাপ সেমি ফাইনালের পথ অনেকটাই মসৃণ করেছে লাল সবুজের দল। বৃহস্পতিবার ট্রেন্ট ব্রিজে অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে পারলে সে পথ হয়ে উ

কেবল নারী শিক্ষকই নেবে ডাচ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সংখ্যায় নারী-পুরুষ সমতা আনতে অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে ইউরোপের অন্যতম সেরা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় এইনদোভেন ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি (টিইউই)।

মন্তব্য লিখুন...

Top