27/05/2019 , ঢাকা

ঈদের আগেই নবম ওয়েজবোর্ড ঘোষণার দাবি


প্রকাশিত: 27/05/2019 19:53:20| আপডেট:

আসন্ন ঈদুল ফিতরের আগেই নবম ওয়েজবোর্ড রোয়েদাদ ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা। তারা বলেন, কারণে-অকারণে মালিকের ইচ্ছায় কোনো গণমাধ্যমকর্মীকে ছাঁটাই মেনে নেওয়া হবে না। একইসঙ্গে যাদের চাকরিচ্যুত করা হয়েছে অবিলম্বে তাদের চাকরিতে পুনঃবহাল করতে হবে।

রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবেরর সামনে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) আয়োজিত গণমাধ্যমে ছাঁটাই বন্ধ, নিয়মিত বেতন দেওয়া, গণমাধ্যম আইন পাস ও নবম ওয়েজবোর্ড রোয়েদাদ ঘোষণার দাবিতে এক মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি মোল্লা জালাল বলেন, আজ গণমাধ্যমকর্মীদের কেউ ভালো নেই, মাঠে কাজে আছেন অফিসে গিয়ে তিনি জানতে পারেন তার চাকরি নেই। আমরা এ ধরনের অবস্থা চাই না। তাদের চাকরিচ্যুত মানা হবে না।

বিএফইউজের মহাসচিব শাবান মাহমুদ বলেন, সাংবাদিকদের অধিকার সব সময় মাঠে থাকতে চায়। আমরা রাজপথে এসেছি আমাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাবো না। গণমাধ্যমে বিশ্বাসঘাতক মোস্তাকের আগমন ঘটেছে। এই ঘাতকদের চিহ্নিত করে তাদের গণমাধ্যম থেকে বিতাড়িত করতে হবে।

তিনি বলেন, সাংবাদিকদের ছাঁটাই, চাকরিচ্যুত, বেতন না দেওয়ার প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আমরা এ অবস্থা দেখতে চাই না। এ অবস্থার উত্তরণ না হলে আন্দোলনের মাধ্যমে দাবি আদায় করা হবে। পাশাপাশি ঈদের আগেই আমরা নবম ওয়েজবোর্ডের রোয়েদাদ ঘোষণার বাস্তবায়ন দেখতে চাই।

সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা বলেন, গণমাধ্যমে কোনো লাভ-লোকসানের হিসাবের মধ্যে আমরা থাকতে চাই না। মালিকপক্ষ চায় না দেশের গণমাধ্যম বিকশিত হোক। তারা গণমাধ্যমে নৈরাজ্য তৈরি করে রাষ্ট্রবিরোধী কাজ করছেন।

ডিইউজের সভাপতি আবু জাফর বলেন, আমরা সাংবাদিকতা করতে চাই। এজন্য কর্মপরিবেশ চাই, নিয়মিত বেতন-ভাতা চাই। আমাদের চোখে ধুলা দেওয়ার চেষ্টা করবেন না। যাদের চাকরিচ্যুত করা হয়েছে তাদের অবিলম্বে চাকরিতে পুনঃবহালের দাবি জানাই।

ডিইউজের যুগ্ম সম্পাদক আকবর হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) যুগ্ম মহাসচিব আব্দুল মজিদ, ডিইউজের সভাপতি আবু জাফর, সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাসিমুন আরা মিনু, দৈনিক মানবকণ্ঠের সহ-সম্পাদক সাবিনা ইসলাম প্রমুখ।

এসময় বিভিন্ন পত্রিকা, টেলিভিশন ও অনলাইন পত্রিকার সংবাদকর্মীরা মানববন্ধনে অংশ নেন।


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

ঝিনাইদহে আত্মীয় হিসেবে বাসায় এসে শিশু অপহরণ

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কনক কুমার দাস জানান, থানায় জিডি হয়েছে। হয়তো ভয়ে পরিবারের লোকজন মামলা করেনি। তবুও তাদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমরা মোবাইল ট্রাকিংয়ের মাধ্যমে অপহরণকারীদের অবস্থান শনাক্ত করেছি।

পরকীয়ার ছবি ফেসবুকে, ছেলেকে নিয়ে খালে ঝাঁপ গৃহবধূর

প্রেমিকের সঙ্গে গৃহবধূর ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হওয়ার পর মুহূর্তেই সেটা ভাইরাল হয়ে যায়। এরপর সংসারে কলহ শুরু

উপজাতি বলে বারবার অপমান করায় আত্মঘাতী চিকিৎসক

তার মায়ের দাবি, সিনিয়র চিকিৎসকেরা প্রায়ই পায়েলকে জাতি বিদ্বেষ মূলক মন্তব্য করতেন। আর সেই কারণেই আত্মহত্যা করেছেন পায়েল। মৃত্যুর আগে কয়েক জনের নামও বলে গিয়েছিলেন তিনি।

মন্তব্য লিখুন...

Top