13/11/2018 , ঢাকা

ঝিনাইদহের সাংবাদিক আজাদ রহমান প্রথম আলোর দেশসেরা প্রতিবেদক


প্রকাশিত:2:22 am | November 5, 2018 | আপডেট:

ঝিনাইদহের সাংবাদিক আজাদ রহমান আবারো দৈনিক প্রথম আলোর বর্ষসেরা প্রতিবেদক নির্বাচিত হয়েছেন। প্রথম আলোতে কর্মরত সাংবাদিকদের মধ্যে তিনি এবছর নানা কল্যাণমুখী ও আলোচিত সংবাদের কারণে তাকে এই দেশ সেরা রিপোর্টারের পুরষ্কারে ভূষিত করা হয়েছে।

রোববার (৪ নভেম্বর) ঢাকায় প্রথম আলো কার্যালয়ে পত্রিকার ২০ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানে এই ঘোষণা দেয়া হয়। পাশাপাশি তার হাতে পুরষ্কার তুলে দেন পত্রিকার সম্পাদক মতিউর রহমান। পুরষ্কার পাওয়ার পর সাংবাদিক আজাদ রহমান তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, এটা সম্ভব হয়েছে সৎ ও নিষ্ঠার সাথে কঠোর পরিশ্রম করে যাওয়ায়। ইতিপূর্বে ২০০৬ সালে তিনি বর্ষসেরা প্রতিনিধি নির্বাচিত হন। কর্তৃপক্ষ তাকে পুরষ্কৃত করেন।

সাংবাদিক আজাদ রহমান ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার চাপালী গ্রামের মৃত নুর আলী মন্ডলের পুত্র। তিনি ১৯৮৯ সালের মার্চ মাস থেকে সংবাদপত্রে কর্মজীবন শুরু করেন। প্রথমে দুই বছর দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জনপ্রিয় পত্রিকা যশোর থেকে প্রকাশিত রানার পত্রিকায় কালীগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেন। এরপর ১৯৯১ সালে খুলনা থেকে প্রকাশিত দেশের আঞ্চলিক দৈনিকগুলোর অন্যতম দৈনিক পূর্বাঞ্চল পত্রিকায় একই উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে দীর্ঘ ৬ বছর কাজ করেন। ১৯৯৪ সালে পূর্বাঞ্চল পত্রিকার মফস্বল প্রতিনিধিদের মাঝে প্রথম স্থান অধিকার করে পুর®কৃত হন।

১৯৯৬ সালের পর যশোর থেকে লোকসমাজ পত্রিকা প্রকাশিত হলে তিনি ওই পত্রিকার ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি হিসেবে যোগদান করেন। শুরু হয় তার জেলা পর্যায়ের সাংবাদিকতা। উপজেলা শহর থেকে তিনি জেলায় গিয়ে অত্যন্ত পরিশ্রমের মধ্যেই এগিয়ে যেতে থাকেন। ১৯৯৮ সালে লোকসমাজ পত্রিকার মফস্বল প্রতিনিধিদের মধ্যে প্রথম স্থান লাভ করে আবারো পুরস্কৃত হন।

এরপর ঢাকা থেকে প্রথম আলো পত্রিকা প্রকাশিত হলে তিনি ওই পত্রিকায় যোগদান করেন। এখনো প্রথম আলো পত্রিকাতেই কর্মরত আছেন। ঢাকার আরো দৈনিক থেকে বিভিন্ন সময়ে তার কাছে সুযোগ এলেও ফিরিয়ে দিয়েছেন। ২০০৭ সালের জুন মাসে প্রথম আলো কর্তৃপক্ষ তাকে নিজস্ব প্রতিবেদক হিসেবে পদমর্যাদা দেয়, অফিস দেয়। সর্বশেষ পেশাগত দক্ষতা আর কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ ২০১৮ সালে আবারো তিনি সেরা রিপোর্টার নির্বাচিত হলেন।

সাংবাদিক আজাদ রহমান ২০০০ সালে ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এরপরেও একাধিকবার প্রেসক্লাবের নেতৃত্বে দায়িত্ব পালনের সুযোগ পেলেও পেশাগত ব্যস্ততার কারণে এ দায়িত্ব নেননি। সাংবাদিক আজাদ রহমান অসহায় দুঃখী অধিকার হারা মানুষ, দরিদ্র মেধাবীমুখ নিয়ে অসংখ্য প্রতিবেদন করছেন। মানবাধিকার বঞ্চিত মানুষদের নিয়েও তার প্রতিবেদন সাড়া ফেলেছে দেশজুড়ে। সন্ত্রাস, দুর্নীতি, অনিয়ম নিয়েও অনুসন্ধানী প্রতিবেদন করে হামলা-মামলায় হয়রানির শিকার হচ্ছেন। এছাড়া সম্ভাবনা সাফল্য নিয়ে হাজারো ইতিবাচক প্রতিবেদন করেছেন। তিনি ঝিনাইদহের পাশাপাশি মাগুরা, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া, যশোরসহ বিভিন্ন জেলায় গিয়েও প্রতিবেদন করেছেন অফিসের পরামর্শে।

সবার কাছে তিনি সৎ ও দায়িত্বশীল সাংবাদিক হিসাবে পরিচিত। তবে সাংবাদিকতা করতে গিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে আজাদ রহমান নানা ষড়যন্ত্রের মুখোমুখিও হচ্ছেন। তার বিরুদ্ধে ১০-১২টি মিথ্যা সিরিজ মামলা দেয়া হয়েছে। তাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের চেষ্টা করা হয়েছে। যা এখনো চলমান রয়েছে।

** নির্ভরযোগ্য খবর জানতে ও পেতে স্টার মেইলের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে রাখুন: Star Mail/Facebook


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

ঝিনাইদহের গীতা দাসের চিকিৎসা বন্ধ টাকার অভাবে

‘মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য, একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না ও বন্ধু…’, ভূপেন হাজারিকা জীবনমুখী গানের অংশ এটি। মানুষের বিপদের সময় পাশে থেকে