22/08/2019 , ঢাকা

নির্ঘুম রাতের গল্প


প্রকাশিত: 22/08/2019 18:20:02| আপডেট:

নির্ঘুম রাতের গল্প

বিকেলের রোদে হৃদয়ের উঠানে ভাবনা গুলো
খেলা করে নানা রঙে ছন্দের নুপুর পরে হেলে দুলে।
কষ্টের ছায়া ভোরের আগেই সিঁধেল চোরের মত
পালিয়ে গ্যাছে মাটি খোঁড়া গৃহবাসীর বুকে যন্ত্রণা রেখে।

তবুও চারিপাশ মানুষের কোলাহলে মুখরিত হয়ে ওঠে
গত রাতে ফেলে আসা একফালি নির্ঘুম রাতের বুকে।
অনাকাঙ্ক্ষিত সূর্যের আলো যেমন করে চোখে বিঁধে
তেমনি হয়তো স্বপ্নের ভাঁজে চোরাবালি ভীড় করে।

একটি স্বপ্নকে বার বার আহত করে সময়ের ঘূর্ণাচক্রে।
এই শহরের বুকে কত যে ইচ্ছের মৃত্যু ঘটেছে
কতবার যে হৃদয়ের সতেজ উঠানে
রক্তখেলা করেছে লুট হয়েছে বিশ্বাস,
ভালোবাসা আপন মানুষের তরে।

স্বপ্নের ঘরে আগুন জ্বেলেছে এই শহরের কিছু দস্যুজনে।
প্রতিহিংসার অনলে পুঁড়েছে স্বপ্ন,সাধ,ইচ্ছে ধীরে ধীরে।
তবুও ছোট্র একটি স্বপ্নকে আঁকড়ে ধরে
আজও বেঁচে আছি এ পৃথিবীর বুকে।

তবুও কেন জানি মনে হয় নিয়তির দ্বারে ধোঁকা খেয়ে
আর কত কাল এভাবে চলতে হবে দস্যুর ভীড়ে।
এখানে সভ্যতার আলো মানুষের গায়ে জ্বল জ্বল করে
আদিমতার ঘুটঘুটে অন্ধকার জমে থাকে বুকের তলে।

পুঁজিবাদী মানুষের ঘেঁষায় পুঁজিহীনরা কেঁদে ওঠে।
ধূর্সর ইট পাথরে গাঁথা অট্রালিকা নীরবে চেয়ে থাকে।
কষ্টের পীঠে কষ্ট চেপে জানি না কতদূর হাঁটতে হবে।
আর কত স্বপ্ন স্মৃতির স্তুুপে চাপা পরবে ধীরে ধীরে।

আরো কি ধৈর্য্যর পরীক্ষা দিতে হবে প্রভূর দরবারে!
তবুও কি জ্বলবে না আলো তিমিরতার মাঝে।
জানি হয়তো অবসান ঘটবে সকল বিপদ এক এক করে
আজিকার স্নিগ্ধরোদের মত বিকালে তুলে তুলে গালে
রেখে যাবে চুম্বনের দাগ পূর্বাকাশে।

 

লেখক:তুহিন মাহামুদ


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

ঝিনাইদহে হিজড়াদের বিচার চাইলেন হিজড়ারা

লিঙ্গ কর্তনকারী হিজড়াদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, বিভিন্ন অপকর্মে প্রতিবাদ,

ঝিনাইদহে সাপের কামড়ে কিশোরের মৃত্যু

ওঝার কাছে ঝাড়ফুঁক করার পর কিছুটা সুস্থবোধ করলে সাকিবকে বাড়িতে আনা হয়।

স্পিরিটের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ, হয়ে যাচ্ছে বিদেশি ব্র্যান্ডের মদ!

অনুমোদিত বিভিন্ন বার ও ক্লাব থেকে বিদেশি মদের খালি বোতল সংগ্রহ করে ভেজাল মদ ঢুকিয়ে নতুন লেভেল লাগিয়ে বাজারজাত করা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন...

Top