27/05/2019 , ঢাকা

প্রস্তুতি ম্যাচে মাশরাফিদের সামনে বড় লক্ষ্য


প্রকাশিত: 27/05/2019 19:57:19| আপডেট:

ত্রিদেশীয় সিরিজে মাঠে নামার আগের একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে আয়ারল্যান্ড উলভসের মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ দল। ম্যাচটিতে ছিল বাংলাদেশি বোলারদের জন্য কঠিন পরীক্ষা। বিশেষ করে পেসারদের জন্য। কিন্তু সেই হিসেবে খুব একটা ভালো করতে পারেননি বোলাররা। উল্টো দেদারসে রান বিলিয়েছেন। যার সুবাদে ৫০ ওভারে বাংলাদেশের সামনে ৩০৮ রানের টার্গেট রেখেছে আইরিশরা।

ডাবলিনের দ্য হিলস ক্রিকেট ক্লাব মাঠে অনুষ্ঠিত ম্যাচে অবশ্য টাইগারদের ভোগাচ্ছে তীব্র ঠাণ্ডা। গা গরমের ম্যাচ বলে দুই দলই যত খুশি খেলোয়াড়ই নামাতে পারছেন। ম্যাচে ক্রিকেটারদের সংখ্যাটা ১১ জনই থাকবে, তবে অদল-বদল করা যাবে যে কাউকেই। যে কারণে বল হাতে মাঠেই নামেননি বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা এবং কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। সেই সুবাদে বল হাতে বেশ সুযোগ পেয়েছেন রুবেল, তাসকিন, ফরহাদ রেজারা।

৮ ওভার বোল করে ৪৫ রান দিয়েছেন রুবেল হোসেন। যার বিপরীতে নিয়েছেন দুটি উইকেট। ১০ ওভার বল করেছেন দীর্ঘদিন পর জাতীয় দলে ফেরা ফরহাদ রেজা। কিন্তু সেই সুযোগ ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। ৬৬ রানের বিপরীতে তিনি নেন মাত্র এক উইকেট। সমান ১০ ওভার বল করে ৬৩ রান দিয়ে দুটি উইকেট নেন তাসকিন আহমেদ। সেই হিসেবে নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেছেন সাকিব আল হাসান। নিজের কোটার ১০ ওভার বোলিং করে ৩০ রান দিয়েছেন তিনি। বিনিময়ে শিকার করেছেন এক উইকেট। সব মিলিয়ে খুব একটা ভালো হয়নি পেসারদের প্রস্তুতি। অথচ এই বিশ্বকাপে এই পেসারদের দিকে তাকিয়ে বাংলাদেশ।

আজ রোববার বাংলাদেশ সময় বিকেলে শুরু হওয়া ম্যাচটিতে টসে হেরে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় আয়ারল্যান্ড উলভস। ব্যাটিংয়ের শুরুতেই ১৫ রানে ওপেনার জ্যাক টেক্টরকে ফিরিয়ে দেন পেসার রুবেল হোসেন। টেক্টরের পর জেমস শ্যাননকে সাজঘরে ফেরান সাকিব আল হাসান। জোড়া উইকেট হারানোর পর জেমস ম্যাককলামের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় আইরিশরা। সিমি সিংহাকে নিয়ে দলের হাল ধরেন তিনি। তুলে নেন সেঞ্চুরি। ১০৯ রানের ইনিংস খেলে দলের ভিত গড়ে দিয়ে সাজঘরে ফিরেন তিনি। এরপর শেষের দিকের ব্যাটসম্যানদের ওপর ভর করে ৩০৭ রানের পুঁজি পায় আয়ারল্যান্ড উলভস।


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

ঝিনাইদহে আত্মীয় হিসেবে বাসায় এসে শিশু অপহরণ

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কনক কুমার দাস জানান, থানায় জিডি হয়েছে। হয়তো ভয়ে পরিবারের লোকজন মামলা করেনি। তবুও তাদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমরা মোবাইল ট্রাকিংয়ের মাধ্যমে অপহরণকারীদের অবস্থান শনাক্ত করেছি।

পরকীয়ার ছবি ফেসবুকে, ছেলেকে নিয়ে খালে ঝাঁপ গৃহবধূর

প্রেমিকের সঙ্গে গৃহবধূর ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হওয়ার পর মুহূর্তেই সেটা ভাইরাল হয়ে যায়। এরপর সংসারে কলহ শুরু

উপজাতি বলে বারবার অপমান করায় আত্মঘাতী চিকিৎসক

তার মায়ের দাবি, সিনিয়র চিকিৎসকেরা প্রায়ই পায়েলকে জাতি বিদ্বেষ মূলক মন্তব্য করতেন। আর সেই কারণেই আত্মহত্যা করেছেন পায়েল। মৃত্যুর আগে কয়েক জনের নামও বলে গিয়েছিলেন তিনি।

মন্তব্য লিখুন...

Top