20/07/2019 , ঢাকা

রাবি ছাত্রকে জিম্মি করে ছাত্রলীগ নেতার টাকা আদায়


প্রকাশিত: 20/07/2019 05:46:30| আপডেট:

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক ছাত্রকে আবাসিক হলে জিম্মি করে ২০ হাজার টাকা আদায় করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের এক নেতা ও এক ছাত্র। বৃস্পতিবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সোহরাওয়াদী হলে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী ওই ছাত্রের নাম ওমর ফারুক। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্সী ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র এবং বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহসম্পাদক শাফিউর রহমান শাফিসহ ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ছাত্র বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন মেহেরচন্ডী এলাকার বাসিন্দা নাঈম ওই টাকা নেন বলে ভুক্তভোগীর দাবি।

ওমর ফারুক জানান, বৃহস্পতিবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সোহরাওয়াদী হলে তিন ঘণ্টা আটক করে তার পরিবারের কাছ থেকে ২০ টাকা আদায় করা হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সহায়তায় ওই দুজনকে চিহ্নিত করা হয় এবং তাকে টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়।

ওমর ফারুক বলেন, ‘গত দুদিন থেকে নাঈম ভাই আমাকে এক বড় ভাইয়ের সঙ্গে দেখা করার কথা বলছিল। তার সঙ্গে গেলে তিনি আমাকে সোহরাওয়ার্দী হলের ১৯১ নম্বর কক্ষে শাফির কাছে নিয়ে যায়। এ সময় তারা আমার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ঢুকে আমি শিবির করি বলে দাবি করে।’

ওই ছাত্র আরো বলেন, ‘শিবিরের বিষয়টি আমি অস্বীকার করলে তারা চর-থাপ্পড় ও লোহার পাইপ দিয়ে মারতে থাকে। ৫০ হাজার টাকা দিলে তারা সিনিয়র নেতাদের কিছু জানাবে না বলে জানায়। পরে তারা আমার পরিবারের কাছে ফোন করে টাকা চাইলে আমার বড় ভাই বিকাশের মাধ্যমে বিশ হাজার টাকা দিতে রাজি হন। টাকা পেয়ে তারা আমাকে ছেড়ে দেন এবং বিষয়টি কাউকে জানালে আমাকে দেখে নেবে বলে হুমকিও দেন।’

ওমর ফারুক বলেন, ‘পরে আমি বিষয়টি আমার জেলা সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমানকে জানাই। ঘটনাটি জানতে পেরে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু তাদের (অভিযোগ ওঠা ছাত্র) কাছ থেকে রাতের মধ্যে টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দেন।’

টাকা নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে শাফি বলেন, ‘ফারুকের গতিবিধি ও আচরণ সন্দেহজনক হওয়ায় আমরা তাকে শিবির সন্দেহে আটক করি। তবে টাকা নেওয়ার সঙ্গে আমি জড়িত নই। টাকা নাঈম নিয়েছে।’ তবে এ বিষয়ে নাঈমের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

ঠাকুরগাঁও জেলা সভাপতি সোহানুর রহমান বলেন, ‘বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি শোনার সঙ্গে সঙ্গে আমি বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরকে জানাই। কিন্তু সন্ধ্যা পেরিয়ে মধ্যরাত হয়ে গেলেও প্রক্টর কোনো ব্যবস্থা নেননি।’

তবে প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান পুলিশকে বিষয়টি জানিয়েছে দাবি করলেও ঘটনাস্থলে কোনো পুলিশকে দেখা যায়নি।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ জানান, জিম্মি করে টাকা নেওয়ার বিষয়টি জানতে পেরে তারা ঘটনাস্থলে যান। সেখানে গিয়ে ওমর ফারুকের থেকে থেকে টাকা নেওয়ার সত্যতা পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জড়িত দুজনের মধ্যে যার কাছে টাকা সে পলাতক। তাদের একজনকে ধরা হয়েছে। তার মাধ্যমে রাতের মধ্যেই ফারুককে টাকা ফিরিয়ে দেওয়া হবে এবং তার নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।

** নির্ভরযোগ্য খবর জানতে ও পেতে স্টার মেইলের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে রাখুন: Star Mail/Facebook


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগে খালেদার মুক্তি আন্দোলনের সৈনিক

সদ্য ঘোষিত ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের কমিটিতে বিএনপি-জামায়াত সংশ্লিষ্টদের নিয়ে কমিটি করার অভিযোগ উঠেছে। বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনে অংশ নেয়া ছাত্রনেতাও পেয়েছেন গুরুত্বপূর্ণ পদ।

কেন্দ্র ঘোষিত কমিটিকে ‘অবাঞ্চিত’ বললেন খুলনা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক

সভায় জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ইমরান হোসেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বক্তব্য শুরু করেন।

ছাত্রলীগের কার্যক্রম জঙ্গিদের মতো: ভিপি নুর

ছাত্রলীগের সাম্প্রতিককালের কার্যক্রমের সঙ্গে জঙ্গিদের কার্যক্রমের মিল রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহসভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর। বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মধুর ক্যান্টিনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন নুর। বগুড়ায় ইফতার মাহফিলে তাঁর ওপর ছাত্রলীগের হামলার ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় এ সংবাদ সম্মেলন করেন নুর। এ সময় […]

মন্তব্য লিখুন...

Top