1. admin@starmail24.com : admin :
  2. editor@starmail24.com : editor@starmail24.com :
করোনা ছড়াচ্ছে বলে মেরে ফেলা দেড় কোটি মিংক নিয়ে বিপাকে ডেনমার্ক - starmail24
শিরোনাম :
মাদক নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে এসডিজি বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না ‘অল্প স্বল্প গল্প’ নিয়ে ফিরলেন আরজে রিজন মালয়েশিয়ায় এপ্রিলের শেষ সাপ্তাহ থেকে প্রায় ১ লাখ ৮০ হাজার বিদেশি কর্মী প্রবেশ করতে পারে ! ইফতার আয়োজনে ‘সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য’ মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের ৮ বছরের অন্তঃদ্বন্ধের সমাধান গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক কর্মচারীদের অসন্তোষ, নোবেল বিজয়ী ডক্টর মোহাম্মদ ইউনুসের নিরাবতা দেশ গড়ার বাস্তবায়নে জনগণের পাশে থেকে কাজ করুন, প্রশাসন ক্যাডারদের প্রধানমন্ত্রী পাকিস্তানের আইনসভা ভেঙে দিলেন প্রেসিডেন্ট, ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন মুখ দেখানোতে আপত্তি, ছবির বদলে বায়োমেট্রিকের নিয়ম দাবি জীবন বীমার সাবেক এমডি জহুরুল হকের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা




করোনা ছড়াচ্ছে বলে মেরে ফেলা দেড় কোটি মিংক নিয়ে বিপাকে ডেনমার্ক

স্টার মেইল ডেস্ক:
  • সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২০

করোনা ছড়াচ্ছে বলে গত মাসে দেড় কোটি মিংক মারা হয়েছিল ডেনমার্কে। এখন সেই মৃত মিংক থেকে দেখা দিয়েছে পরিবেশ-সমস্যা। পরিবেশ বাঁচাতে মৃত মিংকের দেহ বের করে আগামী বছর পোড়ানো হবে। ডেনমার্ক সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

করোনা ছড়াচ্ছে বলে তড়িঘড়ি করে দেড় কোটি মিংক মেরে দিয়েছে ডেনমার্ক সরকার। প্রথম দফায় মারা হয়েছিল ৪০ লাখ মিংক। সেগুলো দ্রুত দেশের পশ্চিমে সামরিক এলাকায় বালি ভর্তি মাটিতে পুঁতে ফেলা হয়েছিল। কিন্তু সেগুলো পচে যাওয়ার পর কিছু মিংকের দেহ আবার নীচ থেকে ওপরে চলে এসেছে। ছড়িয়েছে পরিবেশ দূষণের আতঙ্ক। খবর ডয়চে ভেলের

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, মৃত মিংকগুলো গলেপচে কাছের একটি লেকের জলকে দূষিত করে দিতে পারে। ভূগর্ভস্থ জলও দূষিত হয়ে যেতে পারে। তার প্রভাব তখন পানীয় জলে পড়বে। এই নিয়ে উদ্বেগ ও প্রতিবাদ ক্রমেই বাড়ছে।

এই অবস্থায় খাদ্য ও কৃষি মন্ত্রণালয় বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, সরকার পার্লামেন্টের সম্মতিতে মিংকগুলোর দেহ খুঁড়ে বের করবে। আগামী বছর মে মাস নাগাদ এই কাজ করা হবে। সরকারের ধারণা, ততদিনে করোনার প্রকোপ একেবারে কমে যাবে। তখন মিংকগুলিকে যেখানে বর্জ্য জ্বালানো হয়, সেখানে নিয়ে গিয়ে জ্বালিয়ে দেয়া হবে। তাহলে আর পরিবেশের কোনো ক্ষতির সম্ভাবনা থাকবে না। জলদূষণের ভয়ও যাবে।




আরো পড়ুন