1. admin@starmail24.com : admin :
  2. editor@starmail24.com : editor@starmail24.com :
দোকানের বৈধতা দেওয়ার নামে টাকা নেয়ার অভিযোগে সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে মামলা - starmail24
শিরোনাম :
মাদক নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে এসডিজি বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না ‘অল্প স্বল্প গল্প’ নিয়ে ফিরলেন আরজে রিজন মালয়েশিয়ায় এপ্রিলের শেষ সাপ্তাহ থেকে প্রায় ১ লাখ ৮০ হাজার বিদেশি কর্মী প্রবেশ করতে পারে ! ইফতার আয়োজনে ‘সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য’ মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের ৮ বছরের অন্তঃদ্বন্ধের সমাধান গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক কর্মচারীদের অসন্তোষ, নোবেল বিজয়ী ডক্টর মোহাম্মদ ইউনুসের নিরাবতা দেশ গড়ার বাস্তবায়নে জনগণের পাশে থেকে কাজ করুন, প্রশাসন ক্যাডারদের প্রধানমন্ত্রী পাকিস্তানের আইনসভা ভেঙে দিলেন প্রেসিডেন্ট, ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন মুখ দেখানোতে আপত্তি, ছবির বদলে বায়োমেট্রিকের নিয়ম দাবি জীবন বীমার সাবেক এমডি জহুরুল হকের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা




দোকানের বৈধতা দেওয়ার নামে টাকা নেয়ার অভিযোগে সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে মামলা

স্টার মেইল ডেস্ক:
  • সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২০

রাজধানীর গুলিস্তানের ফুলবাড়িয়া সুপার মার্কেটে-২ দোকানের বৈধতা দেওয়ার কথা বলে সাধারণ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টাকা নেয়ার অভিযোগে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরশনের সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন করা হয়েছে। মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম শহিদুল ইসলামের আদালতে মামলার আবেদন করেন মার্কেটের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন দুলু।

অভিযোগটি নেয়ার পর প্রাথমিক শুনানিতে আদালত জানায়, বাদীর জবানবন্দি এবং এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত পরে জানানো হবে। এ বিষয়ে বাদী দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘আমি উচ্ছেদ হওয়া ব্যবসায়ীদের পক্ষে অভিযোগ করেছি। তবে জবানবন্দি না নেয়া পর্যন্ত কিছুই বলব না।’

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরশনের মালিকানাধীন ওই মার্কেটটির তিনটি ব্লকে নকশাবহির্ভূত ৯১১টি দোকান ছিল। এসব দোকান উচ্ছেদে ৮ ডিসেম্বর অভিযান শুরু করেন ডিএসসিসির কর্মকর্তারা। ওই দিন কয়েক দফায় দোকান মালিক ও কর্মচারীদের সঙ্গে সংঘর্ষের পর শুরু হয় উচ্ছেদ অভিযান। দুপুর ২টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত প্রায় ৩০০ দোকান উচ্ছেদ করা হয়।

ক্ষতিগ্রস্ত দোকানিরা সেদিন অভিযোগ করেন, সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনের সময় (এক বছর আগে) নকশাবহির্ভূত এসব দোকান বৈধ করতে কয়েক কোটি টাকা দিয়েছেন তারা। সাঈদ খোকনকে টাকা দেওয়ার রশিদ বর্তমান মেয়র তাপসকে দেখান ব্যবসায়ীরা। সেগুলো ভুয়া বলে উচ্ছেদ অব্যাহত রাখেন। বৈধতার নামে টাকা নেওয়ার পরেও দোকানগুলো থেকে নিয়মিত ভাড়া আদায় করতো ডিএসসিসি। তাদের হিসাবে তাদের মালিকানা বৈধ। হঠাৎ কীভাবে অবৈধ হয়ে গেল, সেটা বুঝতে পারছেন না তারা।

ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা আরও অভিযোগ করেন, দোকান মালিক সমিতির সভাপতি দেলোয়ার হোসেন দেলু প্রায় দুই যুগ ধরে ওই তিনটি প্লাজা বা মার্কেট এককভাবে নিয়ন্ত্রণ করেছেন। তার নেতৃত্বেই অবৈধ এসব দোকান তৈরি করা হয়েছিল। সেই দোকান মালিক সভাপতিই দেলোয়ারই দোকান বরাদ্দে অনিয়মের অভিযোগ তুলে সাবেক মেয়রেরসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন করেন।




আরো পড়ুন