1. admin@starmail24.com : admin :
  2. editor@starmail24.com : editor@starmail24.com :
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের একাধিক কর্মী করোনায় আক্রান্ত, পাসপোর্ট শাখা বন্ধ ঘোষণা - starmail24
শিরোনাম :
মাদক নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে এসডিজি বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না ‘অল্প স্বল্প গল্প’ নিয়ে ফিরলেন আরজে রিজন মালয়েশিয়ায় এপ্রিলের শেষ সাপ্তাহ থেকে প্রায় ১ লাখ ৮০ হাজার বিদেশি কর্মী প্রবেশ করতে পারে ! ইফতার আয়োজনে ‘সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য’ মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের ৮ বছরের অন্তঃদ্বন্ধের সমাধান গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক কর্মচারীদের অসন্তোষ, নোবেল বিজয়ী ডক্টর মোহাম্মদ ইউনুসের নিরাবতা দেশ গড়ার বাস্তবায়নে জনগণের পাশে থেকে কাজ করুন, প্রশাসন ক্যাডারদের প্রধানমন্ত্রী পাকিস্তানের আইনসভা ভেঙে দিলেন প্রেসিডেন্ট, ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন মুখ দেখানোতে আপত্তি, ছবির বদলে বায়োমেট্রিকের নিয়ম দাবি জীবন বীমার সাবেক এমডি জহুরুল হকের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা




মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের একাধিক কর্মী করোনায় আক্রান্ত, পাসপোর্ট শাখা বন্ধ ঘোষণা

স্টার মেইল ডেস্ক:
  • সর্বশেষ আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের একাধিক কর্মী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। একারণে দেশটির সরকারি বিধিনিষেধ অনুযায়ী কুয়ালালামপুরের আম্পাং শাখার পাসপোর্ট অফিসের কার্যালয় শুক্রবার (১ জানুয়ারি) থেকে পরবর্তী রোববার (১০ জানুয়ারি) পর্যন্ত সাময়িকভাবে সবধরনের কাযর্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) মালয়েশিয়ার বাংলাদেশ হাইকমিশনের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দূতাবাসের কার্যক্রম পুনরায় চালু হওয়ার পর পাসপোর্ট সেবা কার্যক্রম আরো বেগবান করার মাধ্যমে প্রত্যাশীদের সেবা নিশ্চিত করা হবে। এছাড়া, যারা অ্যাপয়ন্টমেন্ট নিয়ে রেখেন তাদের নতুন করে অ্যাপয়েন্টমেন্টের প্রয়োজন নেই বলেও জানানো হয়।

এক্ষেত্রে ১০ জানুয়ারির কাছাকাছি সময়ে নতুন এপয়েন্টমেন্টের দিন পুনরায় নির্ধারণ করে যথাসময়ে অবহিত করা হবে। পূর্বের ঘোষণা অনুযায়ী ২ এবং ৩ জানুয়ারি থেকে মালয়েশিয়ার জহুর বারু প্রদেশে পাসপোর্ট ডেলিভারি সেবার কার্যক্রম চালু থাকবে।

 

এদিকে, দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৫২৫ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ১৩ হাজার ১০ জন।

এ পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ৪৭১ জন। সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন ৮৮ হাজার ৯৪১ জন। তবে দেশটিতে এখন পর্যন্ত কোনো বাংলাদেশি মারা যাওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।




আরো পড়ুন