1. admin@starmail24.com : admin :
  2. editor@starmail24.com : editor@starmail24.com :
বইমেলায় সাদিয়া আফরিনের ‘দহনদিনের জোছনাফুল’ | starmail24
শিরোনাম :
ম্যারিকো বাংলাদেশ নিয়ে এলো রেড কিং মেনজ কুলিং অয়েল পাসপোর্ট পেতে অপেক্ষা : মালয়েশিয়া প্রবাসীরা ভিসা নবায়ন করতে না পারায় গ্রেফতারের আতঙ্কে পাবনা আতাইকুলায় সন্ত্রাসী-চাঁদাবাজদের কোন স্থান নেই : ওসি জালাল উদ্দিন আর্জেন্টিনায় করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা এক লাখ ছাড়িয়েছে করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা ৪০ লাখ ৪৭ হাজার ছাড়িয়েছে টেলিফোনে চিকিৎসা সেবা পাবেন ডিআরইউ সদস্যরা লেবাননে শাহ্জালাল প্রবাসী সংগঠনের দ্বশম বর্ষ পূর্তি উদযাপন ও সভাপতিকে বিদায়ী স্বংবর্ধনা তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহে মালয়েশিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত ইরাকে করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডে অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ৫২ জনের মৃত্যু ২৩ জুলাই পর্যন্ত শিথিল, ঈদের পর আবারও ১৪ দিনের জন্য কঠোর বিধিনিষেধ




বইমেলায় সাদিয়া আফরিনের ‘দহনদিনের জোছনাফুল’

স্টার মেইল, ঢাকা
  • সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১

এ বছর অমর একুশে বইমেলায় অমর একুশে বইমেলা ২০২১-এ প্রকাশিত হয়েছে সাদিয়া আফরিনের প্রথম কবিতার বই ‘দহনদিনের জোছনাফুল’। মেলায় খড়িমাটি প্রকাশনীর ৩১ নম্বর স্টলে বইটি পাওয়া যাচ্ছে।

বইটি প্রকাশ করেছে কিছুকথা প্রকাশনী। প্রচ্ছদ করেছেন কবি ও প্রকাশক মনিরুল মনির। ৬৪ পৃষ্ঠার বইটির মূল্য ১৫০ টাকা। কিছুকথা প্রকাশনীর ফেসবুক পেজ ও গ্রুপে অর্ডার করলে কুরিয়ারের মাধ্যমে পাওয়া যাবে গ্রন্থটি। ঢাকার বাইরে চট্টগ্রাম বাতিঘরেও বইটি পাওয়া যাচ্ছে।

সাদিয়া আফরিন বলেন, লেখালেখির শুরুটা ছোটবেলাতেই। ছোট ছোট কথা, টুকরো টুকরো গল্প ডায়েরীর পাতায় লিখে রাখতে রাখতে কখন যে ডালপালা ছড়িয়ে বড় হতে চলেছিলো নিজেই টের পাইনি। তারপর দীর্ঘ বিরতি। অতঃপর অনলাইনের বদৌলতে ফেসবুকে লেখালেখির শুরু আবার। তবে শুরুতে চারলাইনের অনুকবিতা অথবা ছবিতে ক্যাপশন দিতে লেখা দিলেও পরিবার, বন্ধু এবং  শুভাকাঙ্ক্ষীদের অনুপ্রেরণায় আবার লেখায় ফিরে আসা। ২০১৭ সালের কথা ফেসবুকে নিজের ওয়ালে, পাশাপাশি বিভিন্ন অনলাইন গ্রুপে চলতে থাকে লেখালেখি।

তিনি বলেন, কবিতার প্রতি প্রেম শুরু থেকেই। কবিতা পড়তে, শুনতে এবং লিখতে কখনোই ক্লান্তি আসেনি। প্রত্যেক লেখকের স্বপ্ন থাকে তার লেখাগুলো মলাট বন্দী হোক। সুন্দর মনোলোভা প্রচ্ছদে প্রস্ফুটিত হোক মনের কথাগুলো এক ঝাঁক প্রজাপতি হয়ে। আমারও ইচ্ছে হয়েছিল। তবে ওত বড় স্বপ্ন দেখার যোগ্যতা আসলেই অর্জন করতে পেরেছিলাম কিনা জানা ছিল না। তথাপি স্বপ্ন তো স্বপ্নই। তাই চোখে এঁকে চলেছিলাম। আর এই স্বপ্নকে সত্য করতে অসংখ্য শুভেচ্ছা,  শুভকামনা এবং দোয়া পেয়েছি।

সাদিয়া আফরিন আরো বলেন, পরিবার, বন্ধু-বান্ধব এবং শুভাকাঙ্ক্ষীদের অনুপ্রেরণা আমাকে সাহস যুগিয়েছে, উৎসাহিত করেছে আমার স্বপ্নকে সার্থক করতে। সেই সাথে পাশে এসে দাঁড়িয়েছে কিছুকথা প্রকাশনী এবং খড়িমাটি। তাদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। আন্তরিক ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাই কিছুকথা প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী সাজিয়া আফরিন এবং খড়িমাটির স্বত্বাধিকারী মনিরুল মনিরের প্রতি।




আরো পড়ুন