1. admin@starmail24.com : admin :
  2. editor@starmail24.com : editor@starmail24.com :
পরীমনিকে সংযত হয়ে চলার পরামর্শ মাওলানা ইসমাইলের - starmail24
শিরোনাম :
মালয়েশিয়ার ক্যাম্পে থাকা বাংলাদেশীদের দ্রুত দেশে প্রেরণে ক্যাম্প কমান্ডারকে অনুরোধ বাংলাদেশ হাইকমিশনারের বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব মালয়েশিয়ার মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত রাজারবাগ পী‌রের প‌ক্ষে প্রধানমন্ত্রীর হস্ত‌ক্ষেপ কামনা মালয়েশিয়ায় বিএনপি কর্তৃক বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা ও বিদেশে চিকিৎসা পাঠানোর জন্য দোয়া মাহফিল দেশে দ্বিতীয় ডোজের আওতায় সাড়ে তিন কোটির বেশি মানুষ সাংবাদিক গোলাম ময়নুল আহসানের পিতার ইন্তেকালে ডিআরইউ’র শোক প্রকাশ ‘জামায়াতের রাজনীতির কারণেই আলেমরা বিতর্কিত হয়েছে’ প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা উলামা পীর মাশায়েখ ঐক্য পরিষদের মালয়েশিয়ার পেনাং রাজ্যের শিল্পমালিকগণ বাংলাদেশ থেকে প্র্রকৌশলী নিয়োগে আগ্রহী সাংবাদিক আতিকের বাবার মৃত্যুতে মির্জা ফখরুলের শোক




পরীমনিকে সংযত হয়ে চলার পরামর্শ মাওলানা ইসমাইলের

স্টার মেইল, ঢাকা
  • সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২১

চিত্রনায়িকা পরীমনির অশালীন চলাফেরা পরিহারে চাপ সৃষ্টি করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ ইউনাইটেড ইসলামী পার্টির নেতারা।

শনিবার গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে এ দাবি জানান তারা। সংযত না হলে পরীমনিকে গ্রেফতার করারও দাবি করেন দলটির নেতারা।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়— পরীমনি যখন কারাবন্দি ছিলেন তখন বাংলাদেশ ইউনাইটেড ইসলামী পার্টির চেয়ারম্যান মাওলানা মোহাম্মদ ইসমাইল হোসাইনের পক্ষ থেকে সুবিচার এবং মামলার সুন্দর নিষ্পত্তি দাবি করা হয়েছিল। একজন চলচ্চিত্র কর্মীকে যেন অযথা হয়রানি না করা হয় সে দাবিও আমরা করেছিলাম। তবে পরীমনির বিরুদ্ধে যেসব মাদকদ্রব্য ও একাধিক পুরুষের সঙ্গে অসামাজিক সম্পর্ক গড়ে তোলার অভিযোগ ছিল- সেগুলোর সত্যতা পেয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

সে অনুযায়ী, তার যথাযথ শাস্তি প্রাপ্য হয়ে জেল থেকে ফেরত আসার পর বাংলাদেশের মতো একটি সুন্দর রাষ্ট্রে যেসব অসামাজিক এবং শালীনতা পরিপন্থী কর্মকাণ্ড অবাধে করে যাচ্ছে তা নিঃসন্দেহে হস্তক্ষেপ যোগ্য।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, এ বিষয়ে আমরা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। অনতিবিলম্বে পরীমনির এই নোংরা, জঘন্য এবং কুরুচিপূর্ণ আচরণের লাগাম টেনে ধরতে না পারলে গোটা চলচিত্র জগতের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হবে এবং বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের চলচিত্র জগৎ সংকীর্ণ হয়ে উঠবে। এমন নোংরা আচরণ বাংলাদেশের মানুষ কখনই গ্রহণ করে না।

বাংলাদেশ ইউনাইটেড ইসলামী পার্টির চেয়ারম্যান মাওলানা মো. ইসমাইল হোসাইন এবং মহাসচিব মুফতি শাহাদাত হোসাইন, মাওলানা কাজী শাহ মো. ওমর ফারুক, মুফতি শেখ মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ, হাফেজ মাওলানা মোস্তফা চৌধুরী, মাওলানা মুফতি আবু হানিফ, মাওলানা আব্দুল আজিজসহ সবার দাবি, বাংলাদেশের মানুষ ধর্মভীরু এবং এসব পাপ-পঙ্কিলতা থেকে মুক্ত থাকতে চায়। এমন যেকোনো নোংরা ব্যক্তিত্বকে আইনের আওতায় এনে যথাযথ শাস্তি প্রদান করা এখন সময়ের দাবি।




আরো পড়ুন