1. admin@starmail24.com : admin :
  2. editor@starmail24.com : editor@starmail24.com :
গরিব শিক্ষার্থীদের পাশে টোকাই সমিতি - starmail24
শিরোনাম :
মালয়েশিয়ায় এপ্রিলের শেষ সাপ্তাহ থেকে প্রায় ১ লাখ ৮০ হাজার বিদেশি কর্মী প্রবেশ করতে পারে ! ইফতার আয়োজনে ‘সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য’ মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের ৮ বছরের অন্তঃদ্বন্ধের সমাধান গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক কর্মচারীদের অসন্তোষ, নোবেল বিজয়ী ডক্টর মোহাম্মদ ইউনুসের নিরাবতা দেশ গড়ার বাস্তবায়নে জনগণের পাশে থেকে কাজ করুন, প্রশাসন ক্যাডারদের প্রধানমন্ত্রী পাকিস্তানের আইনসভা ভেঙে দিলেন প্রেসিডেন্ট, ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন মুখ দেখানোতে আপত্তি, ছবির বদলে বায়োমেট্রিকের নিয়ম দাবি জীবন বীমার সাবেক এমডি জহুরুল হকের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা হাজী সেলিমের স্ত্রীর ৫৪তম জন্মবার্ষিকী আজ নির্বাচন কমিশনার হতে চান স্বাস্থ্যের সেই বিতর্কিত সিরাজুল হক খান




গরিব শিক্ষার্থীদের পাশে টোকাই সমিতি

স্টার মেইল, ঢাকা
  • সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ১৫ জানুয়ারী, ২০২২

২০ জন শিক্ষার্থীর আজীবন পড়ালেখার খরচ বহন করবে টোকাই সমিতি নামের একটি সামাজিক সংগঠন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আশির দশকের ছাত্রদের সামাজিক সংগঠন টোকাই সমিতি। ছাত্রাবস্থা থেকে গরিব ও দুঃস্থ শিশুদের পাশে দাঁড়ানোর তাড়না থেকেই শুরু হয় সংগঠনটি।

কোভিড-১৯ এর কারণে অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়েছে অনেক পরিবার। অর্থকষ্টে বন্ধ হওয়ার পথে অনেক শিক্ষার্থীর পড়ালেখা। তাই অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়া এমন ২০ জন শিক্ষার্থীর পড়ালেখার খরচ বহন করতে এগিয়ে এসেছে সংগঠনটি।

রাজধানীর খিলগাঁওয়ে অবস্থিত পল্লীমা সংসদে এক অনুষ্ঠান আয়োজন করে টোকাই সমিতি। অসহায় ও দুঃস্থ শিশুদের পূর্নবাসনের আওতায় ‘শিক্ষা ও মানবিক সহায়তা কার্যক্রম’ এ শিক্ষার্থীদের আর্থিক অনুদান এবং নারীদের কারিগরী সামগ্রী দেওয়া হয়েছে। সেই সাথে, উপহার হিসেবে দেওয়া হয়েছে একটি করে স্কুল ব্যাগ ও শিক্ষা সামগ্রী।

সংগঠনটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান জুয়েল বলেন, “করোনার কারণে অনেক পরিবারের আয় কমে গেছে। এই কারণে অনেকেই তাদের বাচ্চাদের পড়ালেখা বন্ধ করে দিয়েছে। কিন্তু আমরা চেয়েছি এই শিশুরা যাতে পড়ালেখা করতে পারে সেই ব্যবস্থাটুকু করে দিতে। তারা ঝরে পড়লে আমাদের দেশেরই ক্ষতি।”

প্রতি মাসের প্রথম সপ্তাহে অভিভাবকদের মোবাইলে পৌঁছে দেওয়া হবে সহায়তার অর্থ। সেই অর্থ দিয়েই স্কুলের বেতন এবং শিক্ষা উপকরণ কিনতে খরচ করবে শিক্ষার্থীরা।

এছাড়াও এসএসসি শিক্ষার্থীদের জন্য থাকবে বিশেষ কারিগরি প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা। যেখানে তারা হাতে-কলমে শিখতে পারবে ড্রাইভিং, কম্পিউটার চালনা, ফ্রিল্যান্সিংসহ অনেক কিছু।

সংগঠনটির আরেক সদস্য কানাডাপ্রবাসী ফজল মাহমুদ স্টার মেইল টােয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “দেশে না থাকলেও দেশের প্রতি একটা টান সব সময় কাজ করে। দেশের মানুষ, বিশেষ করে এই বাচ্চাদের জন্য সামান্য কিছু করতে পারাটাও অনেক আনন্দের। তারা ভালোভাবে পড়ালেখা করলে দেশ-জাতি সমৃদ্ধ হবে, এগিয়ে যাবে।”

এছাড়াও পাঁচজন নারীকে স্বাবলম্বী করার লক্ষ্যে দেওয়া হয়েছে সেলাই মেশিন। তাদের জন্য বিভিন্ন কারখানা থেকে ন্যায্যমূল্যে কাজ এনে দিবে সংগঠনটি।

জুয়েল বলেন, “প্রথম ধাপে আমরা পাঁচজন নারীকে সেলাই মেশিন দিয়েছি। বিভিন্ন গার্মেন্টস থেকে কাজের অর্ডার এনে দিবো আমরা। তারা ন্যায্যমূল্যে কাজ করবে৷ টাকা-পয়সা আয় করবে। এভাবে তারা নিজেরাই স্বাবলম্বী হয়ে উঠবে।”

রাজধানী ঢাকা এবং দেশের উত্তরাঞ্চলের গরিব মানুষদের শীতের প্রকোপ থেকে রক্ষা করতে ইতোমধ্যেই কম্বল বিতরণ করেছে টোকাই সমিতি।




আরো পড়ুন