1. admin@starmail24.com : admin :
  2. editor@starmail24.com : editor@starmail24.com :
শিরোনাম :
মাদক নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে এসডিজি বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না ‘অল্প স্বল্প গল্প’ নিয়ে ফিরলেন আরজে রিজন মালয়েশিয়ায় এপ্রিলের শেষ সাপ্তাহ থেকে প্রায় ১ লাখ ৮০ হাজার বিদেশি কর্মী প্রবেশ করতে পারে ! ইফতার আয়োজনে ‘সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য’ মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের ৮ বছরের অন্তঃদ্বন্ধের সমাধান গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক কর্মচারীদের অসন্তোষ, নোবেল বিজয়ী ডক্টর মোহাম্মদ ইউনুসের নিরাবতা দেশ গড়ার বাস্তবায়নে জনগণের পাশে থেকে কাজ করুন, প্রশাসন ক্যাডারদের প্রধানমন্ত্রী পাকিস্তানের আইনসভা ভেঙে দিলেন প্রেসিডেন্ট, ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন মুখ দেখানোতে আপত্তি, ছবির বদলে বায়োমেট্রিকের নিয়ম দাবি জীবন বীমার সাবেক এমডি জহুরুল হকের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা




আবারো বাড়ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি

স্টার মেইল ডেস্ক:
  • সর্বশেষ আপডেট : বুধবার, ২ ফেব্রুয়ারী, ২০২২

দেশে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় আবারো বাড়ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি। ৬ ফেব্রুয়ারির পর আরও দুই সপ্তাহ ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বুধবার শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির বরাত দিয়ে একথা জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবুল খায়ের।

করোনার সংক্রমণ বাড়ায় এর আগে ২১ জানুয়ারি থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দুই সপ্তাহ ছুটি ঘোষণা করা হয়। আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তা চলার কথা ছিল। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এই ছুটি আরও দুই সপ্তাহ চলবে। পরবর্তী সময়ে পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

দুই সপ্তাহ ছুটি বাড়ার তথ্য দেওয়ার আগে অবশ্য শিক্ষামন্ত্রী এক সপ্তাহ ছুটি বাড়তে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। ওইসময় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘অবস্থা পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। জাতীয় পরামর্শক কমিটি আরও কিছুদিন দেখার পক্ষে মত দিয়েছেন। এ পরিস্থিতিতে আরও এক সপ্তাহ ছুটি বাড়তে পারে। আমরা সবার সঙ্গে আলোচনা করে শিগগির সিদ্ধান্ত জানাব। যেহেতু সংক্রমণ এখন প্রায় ৩০ ভাগ। হয়তো ৬ তারিখের পর আরও এক সপ্তাহ দেখা যেতে পারে। আমরা নিয়মিত অবস্থা পর্যালাচনা করছি। প্রয়োজনে ভিন্ন সিদ্ধান্তও হতে পারে।’

দেশে গত কয়েক দিনেই দৈনিক করোনা শনাক্ত ১৩ হাজারের ওপর থাকছে। করোনায় মৃত্যুর সংখ্যাও টানা চার দিন ধরে ৩০ এর উপরে রয়েছে। সবশেষ বুধবার সকাল পর্যন্ত পূববর্তী ২৪ ঘণ্টায় ৩৬ জনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ অবস্থায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া নিয়ে পরামর্শক কমিটি ও সরকার দ্বিধায় রয়েছে।

অন্যদিকে ইউনিসেফের পক্ষ থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ে ২০২০ সালের ৮ মার্চ। পরে ১৮ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয় সরকার। প্রায় দেড় বছর বন্ধ থাকার পর গত বছরের ১২ সেপ্টেম্বর প্রথমে স্কুল কলেজ, পরে বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়া হয়।

করোনার সংক্রমণ বাড়ায় গত বছরের ১৩ ডিসেম্বর ১১ দফা বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। ২১ ডিসেম্বর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধসহ নতুন করে পাঁচ দফা নির্দেশনা আরোপ করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। তাতে আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়।




আরো পড়ুন